কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যকারীরা জাগো হিন্দু পরিষদের নয়, দাবি নেতাদের

চট্টগ্রামে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সমাবেশে হেফাজতসহ ইসলামি আন্দোলনের নেতাদের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যকারীরা জাগো হিন্দু পরিষদের বহিষ্কৃত নেতাকর্মী বলে জানিয়েছে সংগঠনটি।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রামের জিইসি মোড়ের একটি হোটেলে হেফাজতে ইসলামসহ কয়েকটি ইসলামি সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে জাগো হিন্দু পরিষদের মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন নেতারা।

সভায় হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও গবেষণা সম্পাদক মুফতি হারুন ইজাহার, কওমি মাদ্রাসা বোর্ডের সভাপতি মাওলানা আলী ওসমান, হেফাজতে ইসলামের পেশাজীবী পরিষদের নেতা দিদারুল আলম ও জাগো হিন্দু পরিষদের উপদেষ্টা মিলন শর্মা, সভাপতি রুবেল কান্তি, সহসভাপতি তপন দাশ, দেবু সরকার ও নিতাই দেবনাথ বক্তব্য দেন।

সভায় বক্তারা কোনো ধর্মীয় সংঘাতে না গিয়ে পারস্পরিক সম্মান ও সম্প্রীতির মাধ্যমে কাজ করার আহ্বান জানান। ভবিষ্যতে যেকোনো সংকট আলোচনার মাধ্যমে সমাধান ও কারো প্রতি বিদ্বেষপূর্ণ আচরণ পরিহারে একমত পোষণ করেন।

জাগো হিন্দু পরিষদের নেতারা জানান, হেফাজতসহ ইসলামি আন্দোলনের নেতাদের নিয়ে যে স্লোগান দিয়েছে তাতে আমাদের সংগঠন একমত নয়। তারা জাগো হিন্দু পরিষদের ব্যানার ব্যবহার করে অপকর্ম করেছে।

দুই বছর আগে সংগঠন থেকে তাদের বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উসকানিমূলক ভাষা ব্যবহারকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান হিন্দু নেতারা।

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও গবেষণা সম্পাদক মুফতি হারুন ইজাহার বলেন, ‘ইসলামি আন্দোলন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও সব ধর্মের মানুষের সহাবস্থানে বিশ্বাসী।

যেকোনো ধরনের উগ্রতা ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নস্যাৎ করার যেকোনো অপচেষ্টা ইসলামি আন্দোলন ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করে। দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের মাধ্যমে যারা নতুন সংকট তৈরি করতে চায় চট্টগ্রামে উগ্র স্লোগানদাতারা মূলত তাদের দোসর।

গত ৭ নভেম্বর চট্টগ্রামের নিউমার্কেট এলাকায় হেফাজতসহ ইসলামি আন্দোলনের নেতাদের নিয়ে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ আয়োজিত সমাবেশে কুরুচিপুর্ণ বক্তব্যসহ নানা অশালীন আচরণ করে জাগো হিন্দু পরিষদের একটি অংশ।

ntvbd

About namiradistro

Check Also

Anak Mengira Dijemput tapi Malah Didatangi Mobil Jenazah ke Sekolah, Ada Mayat Sang Ayah

Kisah pilu anak mengira sang ayah menjemputnya pulang sekolah, ternyata yang datang justru mobil jenazah …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 − 3 =